বাজারজাতকরন সমস্যায় ক্ষতির মুখে পড়ে বন্ধ হচ্ছে দুগ্ধ খামার, উপকুলীয় অঞ্চলে মিল্ক প্রসেসিং ফ্যাক্টরী গড়ে তোলার দাবী

47

খুলনা ব্যুরো।।

খুলনাসহ উপকুলীয় অঞ্চলে উৎপাদিত দুধ সঠিকভাবে ও নায্য মূল্যে বাজারজাত করতে না পারায় চরম ক্ষতির মুখে পড়ছে খামারীরা। এমন কি দিনের পর দিন রোকসানের মুখে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে দুধ উৎপাদন খামার। এ অঞ্চলের এসব চ্যালেঞ্জ মোকবেলা করে পুষ্টিকর ও মানসম্পন্ন দুধ উৎপাদন ও সরবরাহ কঠিন হয়ে পড়েছে। তাছাড়া দেশে পশু খাদ্যের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে কিন্তু সে অনুযায়ী দুধের মূল্য বৃদ্ধি পায়নি।খামারীদের এসব সমস্যা সমাধানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মিড ডে মিল হিসেবে শিক্ষার্থীদের দুধ সরবরাহ করা এবং খুলনাঞ্চলে একটি মিল্ক প্রসেসিং ফ্যাক্টরি স্থাপনের জোর দাবী জানিয়েছেন তারা।মঙ্গলবার বিশ্ব দুগ্ধ দিবসের আরোচনা সবায় খুলনার খামারীরা এসব দাবীর কথা জানান।‘দুধ পানের অভ্যাস গড়ি, পুষ্টির চাহিদা পুরণ করি’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে খুলনা জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের উদ্যোগে এ দিবস পালন উপলক্ষ্যে বিভাগীয় প্রাণিসম্পদ দপ্তরের বঙ্গবন্ধু অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। এ সময় তিনি বলেন, মেধাবী প্রজন্ম গড়তে হলে তাদের পুষ্টির চাহিদা নিশ্চিত করতে হবে। আর পুষ্টির চাহিদা নিশ্চিতে দুধপানের কোন বিকল্প নেই। কিন্তু সচেতনতার অভাবে অধিকাংশ মানুষ প্রতিদিন নিয়মিত দুধ পান করে না। মানুষকে দুধের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে আরো সচেতন করার আহবান জানান।  তিনি বলেন, এক সময় গ্রামগঞ্জের প্রতিটি পরিবার ছিলো স্বনির্ভর, পুষ্টির চাহিদা মেটাতে তাদের বাজারে যেতে হতো না। কিন্তু সেই ঐতিহ্য নানা কারণে এখন আর নেই। সোনালী সেই দিন ফেরাতে প্রধানমন্ত্রী ‘আমার বাড়ি আমার খামার’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছেন। এসময় তিনি নায্যমূল্যে নিরাপদ দুধ সকলের নিকট পৌঁছে দিতে খামারীদের প্রতি আহবান জানান।

খুলনা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মোঃ ইকবাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন খুলনা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের পরিচালক ডাঃ মোঃ আমিনুল ইসলাম মোল্যা, জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার রণজীতা চক্রবর্ত্তী,  ফুলতলা উপজেলা প্রণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ অরুন কান্তি মন্ডল, ফুলতলা ভেটেরিনারি সার্জন ডাঃ তরিকুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শ্যামল সিংহ রায় এবং খামারীদের পক্ষে মোঃ তোফাজ্জেল হোসেন তুষার প্রমুখ।এরআগে দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিভাগীয় প্রাণিসম্পদ দপ্তর চত্ত্বরে একটি র‌্যালি হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে প্রানিসম্পদ দপ্তর চত্বরে একটি গাছের চারা রোপন করা হয়।##

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here