বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
পঞ্চগড়ের নৌকাডুবিতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৫, নিখোঁজ আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ট্রফি ভাঙা সেই ইউএনওকে ঢাকায় বদলি প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী তিন ফসলি কৃষিজমি ধ্বংস করে কোন কিছু করা যাবে না বাংলাদেশ ও ভারতের মানুষের মধ্যে ঐতিহ্য, কৃষ্টি ও সংস্কৃতির সাদৃশ্যে নানা উৎসবে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ : ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ও নিয়োগের ক্ষেত্রে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে : উপাচার্য শ্যামনগরের কাঁশিমাড়িতে বজ্রপাত প্রতিরোধে তিন কিলোমিটার রাস্তায় তালবীজ বপন রামপালে বিনামূল্যে চিকিৎসা পেলেন ৩ সহস্রাধিক রোগী  খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে রিসার্চ সোসাইটির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা আমাদের সকলের দায়িত্ব : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী রামপাল তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের মালামালসহ ০৬ ডাকাত গ্রেফতার

খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে কৃষকের অবদান অনস্বীকার্য

খুলনা প্রতিনিধি।।
  • প্রকাশিত সময় বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৭ পড়েছেন

##   খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মো: জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, কৃষি বাংলাদেশের সবচেয়ে অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত খাত। বর্তমানে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের পিছনে কৃষকের অবদান অনস্বীকার্য। তাদের সমস্যা সমাধান করতে না পারলে কৃষি উৎপাদনের বর্তমান খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের ধারাবাহিকতা ধরে রাখার সম্ভব হবে না। তিনি আরও বলেন, কৃষি সেক্টরকে বাঁচাতে স্থানীয় পর্যায়ে সার, বীজ ও সেচ সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। এক্ষেত্রে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কৃষি কর্মকর্তা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিতে হবে। তিনি দেশপ্রেমের আদর্শকে ধারণ করে কৃষিখাতের সম্ভাবনা এবং সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে সমাধানে সমন্বিত পদক্ষেপ নিতে বলেন। বুধবার সকালে খুলনা জেলা শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত ফসল উৎপাদনে বীজ, সার ও পানি ব্যবস্থাপনা শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খুলনা অঞ্চলের পরিচালক মোঃ ফজলুল হক। অনুষ্ঠানে স্বাগত জানান কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ হাফিজুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন বিএডিসি’র যুগ্ম পরিচালক(সার) মোঃ লিয়াকত হোসেন, আঞ্চলিক বীজ প্রত্যয়ন কর্মকর্তা মোঃ নুরুল ইসলাম ও কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের উপপরিচালক সিফাত মেহনাজ।  মতবিনিময় সভায় বীজ, সার ও পানি ব্যবস্থাপনায় উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ বিভিন্ন সুপারিশ তুলে ধরেন। তাঁরা স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত ফসল পরিবহনে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, সেচ সুবিধা পেতে স্লুইজগেট সচল রাখা এবং এগুলো পরিচালনায় কর্তৃপক্ষের তদারকি, টেকসই বাঁধ নির্মাণ ও খাল খননে নজরদারিসহ খাল উন্মুক্ত রাখতে প্রশাসনের দৃষ্টি আর্কষণ করেন। অনুষ্ঠানে খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলার সকল পর্যায়ে কৃষি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সার ও বীজ ডিলার, স্থানীয় কৃষক এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।##

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu