রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা, শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ সাংবাদিকতা ও গনমাধ্যমের সুষ্ঠু নীতিমালা জরুরি  মোরেলগঞ্জে খুলনা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক রাসেলকে সংবর্ধনা ভোমরা স্থলবন্দর সিএন্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের এডহক কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ দৈনিক খুলনা টাইমস’র ৩য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন মুজিব বর্ষে মোল্লাহাটে ৭০ ভূমিহীন-গৃহহীনের আপন ঠিকানা খুলনায় চাঁদাবাজি মামলায় তিন পুলিশসহ ৫ জনের আট বছরের কারাদন্ড খুলনায় সোনালী ব্যাংকের ৫কোটি টাকা আত্নসাত মামলায এজিএমসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা খুলনায় আনসার ও ভিডিপি বাহিনীর উদ্যোগে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে পতাকা র‌্যালী অনুষ্ঠিত মানসিক নির্যাতনে কুয়েট শিক্ষকের মৃত্যুর অভিযোগ; ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

কুমিল্লা-নোয়াখালী ও রংপুরসহ সারা দেশে মন্দিরে হামলা-ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ লুটপাট ও হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১
  • ৩৫ পড়েছেন

অফিস ডেক্স ।।

কুমিল্লা-নোয়াখালী, রংপুর, সিলেট, চট্টগ্রাম, ফেনীসহ সারা দেশে এবং শারদীয়া দুর্গাপূজার প্রাক্কাল থেকে ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় মন্দিরে হামলা, ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ-লুটপাট ও হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি প্রদান করেছে খুলনার বিভিন্ন সংগঠন। সোমবার বিকালে নগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে পূজা উদযাপন পরিষদ, হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষদ, ইসকনসহ বিভিন্ন সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আন্তর্জাতিক কৃষ্ণ ভাবামৃত সংঘ-ইসকন খুলনার সভাপতি অধ্যক্ষ গৌড়েশ্বর নিমাই দাস ব্রহ্মচারীর সভাপতিত্বে এবং বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার কুন্ডুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তৃতা করেন ইস্কন খুলনা শাখার প্রধান উপদেষ্টা অধ্যক্ষ ড. তপচৈতন্য দাস ব্রহ্মচারী, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা অরবিন্দ সাহা, স্বজন সাংবাদিক ফোরামের উপদেষ্টা মল্লিক সুধাংশু, নগর পূজা পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও দৌলতপুর থানা সভাপতি তিলক কুমার গোস্বামী, বাংলাদেশ যুব ঐক্য পরিষদ, খুলনা মহানগর সভাপতি বিশ্বজিৎ দে মিঠু, ইস্কন খুলনা শাখার সাধারণ সম্পাদক ঈশগৌরাঙ্গ চাঁদ ব্রহ্মচারী, রাধামাধব মন্দির খুলনার প্রধান পুজারী জয়পুরুত্তম জগন্নাথ দাস ব্রহ্মচারী, শান্ত বৈকুণ্ঠ দাস, বৈষ্ণব বলরাম দাস, ভক্তি বেদান্ত গীতা একাডেমি খুলনার পরিচালক কাঞ্চন গোবিন্দ দাস ব্রহ্মচারী, পরিচালক আইওয়াইএফ শ্রীশ্রীরাধা মাধব মন্দির খুলনার তিতিক্ষু গৌর দাস ব্রহ্মচারী, মুকুন্দ মুরারী দাস ব্রহ্মচারী, নগর পূজা পরিষদের সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য গৌরাঙ্গ সাহা, বিবেকানন্দ শিক্ষা ও সংস্কৃতিক পরিষদ, খুলনার সভাপতি সুজিত কুমার মজুমদার, তীর্থালোক সংঘ খুলনার সাধারণ সম্পাদক স্বপন চক্রবর্ত্তী, বাংলাদেশ ব্রাহ্মণ সংসদ খুলনার সাধারণ সম্পাদক সুরেশ চক্রবর্ত্তী, খুলনা সদর থানা সভাপতি বিকাশ কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব সাহা লব, সোনাডাঙ্গা থানা সভাপতি বিপ্লব মিত্র, সাধারণ সম্পাদক রামচন্দ্র পোদ্দার, নগর ছাত্র ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক পাপ্পু সরকার, সদস্য সচিব প্রণব চক্রবর্ত্তী, ইস্কন খুলনা শাখার পুজারী সুখী গোপাল দাস ব্রহ্মচারী, সূর্যকান্ত গৌর দাস ব্রহ্মচারী, মহানাম কীর্ত্তন দাস ব্রহ্মচারী, ভবেশ সাহা, বাবু শীল, উজ্জল রায়,বাবলু বিশ্বাস, শিবনাথ ভক্ত, তাপস সাহা, শংকর পোদ্দার, তরুণ রায় শিবু, বাসুদেব কর্মকার, মহাদেব সাহা, উজ্জল ব্যানার্জী, পঙ্কজ দত্ত, প্রসীত সাহা, প্রদীপ সাহা মদন, অনিমেষ নন্দী, সাধন ঘোষ, ভোলানাথ দত্ত, সুকুমার সাহা, সুশীল দাস, নীলকান্ত দত্ত,   রবীন দাস, অলোকে দে, অসীত চক্রবর্ত্তী, বিজন দত্ত, সুবাহু মধুসূদন দাস, দিনেশ দাস, তপ্তকাঞ্চন দাস, চিণ¥য় দাস, বিপ্রজিৎ দাস, সব্যসাচী দাস প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা শারদীয়া দুর্গাপূজার অষ্টমীতে কুমিল্লার একটি মন্দিরে ধর্ম অবমাননার ধুয়া তুলে মৌলবাদীগোষ্ঠী যে সহিংস ঘটনার সৃষ্টি করেছে সেই কথিত কুচক্রীকে গ্রেফতারের পরেও নোয়াখালী ইস্কন মন্দিরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর-লুটপাটসহ মন্দিরে অবস্থানরত প্রভুদের উপর অমানুসিক নির্যাতন করা হয়, যার ফলে এক প্রভু মৃত্যুবরণ করেন। শুধু তাই নয় নোয়াখালী রামকৃষ্ণ মিশনসহ অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, চাঁদপুর, হাজীগঞ্জ, নোয়াখালী, সিলেট, হবিগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, ভোলা, বরগুনা, খুলনার কয়রা এবং ঢাকাসহ সর্বশেষ রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু পল্লীতে ৬৫টি বাড়িঘর ও মন্দির ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়। এছাড়া ২০টি বাড়িঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়। তাছাড়া দেশের বিভিন্ন এলাকায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মন্দির, বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাট, অগ্নি সংযোগ ও সাম্প্রদায়িক সহিংসতার মাধ্যমে বিভিন্ন মন্দিরের পুরোহিত ও ভক্তদের হত্যা, নারী ও শিশুদের ধর্ষণসহ হত্যার বিচার চেয়ে সরকারের নিকট এ সমস্ত সহিংতা বন্ধ ও দোষীদের দ্রুত গ্রেফতারপূর্বক কঠোর শাস্তির দাবী জানান। মানববন্ধনে মন্দিরের অসংখ্য ব্রহ্মচারী, সেবায়েত, মা-বোনসহ অসংখ্য নারী-পুরুষ দ্রুত এসব অপরাধীদের বিচার চেয়ে আর্তনাদ করতে থাকেন।

মানববন্ধন শেষে নেতৃবৃন্দ মিছিল সহকারে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন।##

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ
© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)
Hwowlljksf788wf-Iu