শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ০২:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম
খুলনার সর্বস্তরের মানুষের ভালোবাসার কাছে কৃতজ্ঞ ও ঋনী :  মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক দেশের সব অনিবন্ধিত হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধের নির্দেশ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের, দ্রুত কার্যকরের দাবী পাইকগাছায় পূজা পরিষদের পৌর শাখা কমিটি গঠন খুলনায় বিএনপির ৮৯২ নেতাকর্মীর নামে মামলা : ২৯ জন জেল-হাজতে, ১২নারী নেতাকর্মীর জামিন কয়রার মহারাজপুর ইউনিয়নের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষনা  ছাত্রলীগ-যুবলীগ ও পুলিশ তান্ডব চালিয়ে উল্টো মামলা দিয়ে বিএনপির নেতার্মীদের গ্রেফতার করছে : মনা পাইকগাছায় সারদা আশ্রমের উদ্যোগে শিক্ষা উপকরন বিতরন নগরীতে ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশার লাইসেন্স প্রদানের দাবিতে সমাবেশ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৩তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন খুলনা নগরীর অধিকাংশ অসহায় মানুষকে সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচীতে যুক্ত করা যায়নি

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও সরকারকে বিপাকে ফেলতে স্বেচ্ছায় আত্মগোপন চক্রের অপতৎপরতা : র‌্যাবের অভিযানে উদ্ধার আত্নগোপনে থাকা খুলনার রফিক

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় রবিবার, ১ মে, ২০২২
  • ৩৫ পড়েছেন

বিশেষ প্রতিবেদক।।

খুলনাসহ সারাদেশে স্বেচ্ছায় আত্মগোপন করে সরকার ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে গুম, অপহরণ ও হত্যার দায় চাপাতে একটি চক্র অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। সরকারকে বিপাকে ফেলতে, ভাবমূর্তি নষ্ট এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে স্বেচ্ছায় আত্মগোপন চক্র সংঘবদ্ধভাবে রাজনৈতিক সহকর্মী ও নিকটজনদের আত্মগোপনে রেখে ফায়দা নেয়ার চেষ্টা করছে। শুক্রবার(২৯ এপ্রিল) র‌্যাব স্বেচ্ছায় আত্মগোপন চক্রের একজনকে উদ্ধারের পর এ তথ্য জানা গেছে। শনিবার র‌্যাব-৬ খুলনা থেকে প্রায় দেড় বছর স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে থাকা মোহাম্মদ রফিক হোসেন পল(৩০) নামে একজনকে কক্সবাজার থেকে উদ্ধার করার কথা জানায়। এদিন সকালে র‌্যাব-৬ খুলনার প্রধান  কার্যালয়ে প্রেসব্রিফিংয়ে এ তথ্য সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন অধিনায়ক লে. কর্নেল মোশতাক আহমেদ।তবে এই চক্রের সাথে জঙ্গিবাদী সংগঠন, স্বাধীনতা বিরোধী চক্র ও দেশের উন্নয়ন বিরোধী কোন গ্রুপের চক্রান্ত এবং যোগসাজস আছে কিনা তা খতিয়ে দেখার দাবী সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের।

প্রেসব্রিফিংয়ে র‌্যাবের এই কর্মকর্তা সাংবাদিকদের জানান, খুলনা নগরীর সোনাডাঙ্গা থানার রোড নং-১৪ এবং ৩৩ নম্বর বাড়ির বাসিন্দা মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে মো. রফিক হোসেন পল(৩২) ২০২১ সালের ০৭জানুয়ারী স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে চলে যায় এবং পরিবারের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করেন। রফিক নিখোঁজের পর পরিবারের পক্ষ থেকে খুলনা নগরের সোনাডাঙ্গা থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। দীর্ঘদিন না পেয়ে তাঁকে অপহরণ করে হত্যার পর গুম করা হতে পারে এমন গুজবও ছড়ানো হচ্ছিল। ব্যাপারটির তদন্তে নেমে র‌্যাব-৬ এর সদস্যরা তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে রফিকের অবস্থান শনাক্ত করেন। পরে গত ২৯এপ্রিল বিকেলে কক্সবাজারের শাহিন বীচ এলাকায় অভিযান চালিয়ে রফিককে উদ্ধার করা হয়।তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রফিক জানিয়েছে চাকরি হারানোর পর হতাশা থেকে মুক্তির জন্য তিনি আত্নগোপন করেছিলেন।এসময় তিনি প্রথমে ঢাকায় ০৭মাস মাস্ক বিক্রয় করেন। তিন মাস ঢাকা সদরঘাটে হকার হিসেবে খেলনা বিক্রি করেন। মুন্সিগঞ্জেও ০৯দিন হকারি করেছিলেন। নারায়নগঞ্জে ০৫মাস টোকাই হিসেবে পুরোনো বোতল ও লোহা কুড়িয়ে বিক্রি করেন। সবশেষ কক্সবাজার শাহিন বীচের ইউনুসের চায়ের টোং দোকানে মাসিক ৯হাজার টাকা বেতনে চাকরি শুরু করেছিলেন।

তিনি আরো জানান, রফিক হোসেনের নিখোঁজের ঘটনায় ২০২১ সালের ১৩জানুয়ারি মোছা. মঞ্জুরা বেগম বাদী হয়ে সোনাডাঙ্গা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন। জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন, ০৭জানুয়ারি সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর আর বাড়ি ফেরেননি রফিক হোসেন। ওই সময় থেকে রফিকের ব্যবহৃত দুটি মোবাইল নম্বরও বন্ধ পাওয়া যায়। বিভিন্ন জায়গায় খুঁজেও তাঁরা রফিকের সন্ধান পায়নি।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরো জানান, সারাদেশে আত্মগোপন করে সরকার ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে গুম ও অপহরণের দায় চাপাতে একটি চক্র অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।সরকারকে বিপাকে ফেলতে ও ভাবমূর্তি নষ্ট এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে আত্মগোপন চক্র সংঘবদ্ধভাবে রাজনৈতিক সহকর্মী ও নিকটজনদের আত্মগোপনে রেখে ফায়দা নেয়ার চেষ্টা করছে। এই চক্রেরই যোগসাজসে খুলনার রফিক হোসেন ২০২১ সালের ০৭জানুয়ারী স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে চলে যায়। পরে তার পরিবার অপহরন হয়েছে বলে থানায় জিডি করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দ্বারস্থ হয় পরিবারের সদস্যরা। পরে তাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে গুম বা অপহরণ করে মেরে ফেলার অভিযোগ তুলে পরিবারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন রকম অপপ্রচার চালানো হয়। তবে তিনি কারো দ্বারা গুম বা অপহরণ হননি। তিনি চাকরি হারিয়ে পারিবারিক চাপে স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে গিয়েছিলেন। প্রায় দেড় বছর আত্মগোপনে থাকা রফিক নিজের বেশভূষা পরির্বতন করে পরিবারের সঙ্গে সকল ধরণের যোগাযোগ বন্ধ রাখে। এই আত্মগোপন চক্র পরিকল্পিতভাবে রাজনৈতিক কর্মী ও নিজেদের আত্মীয় স্বজনকে আত্মগোপনে রেখে সরকার ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে বেকায়দায় ফেলতে ও দেশে-বিদেশে ভাবমূর্তি নষ্ট করতে অপতৎপরতা চালাচ্ছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এ চক্রকে কঠোরভাবে দমন করতে সকল ব্যবস্থা গ্রহন করেছে বলে তিনি জানান। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রফিককে খুলনার সোনাডাঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে র‌্যাবের এ কর্মকর্তা জানান।

প্রেস ব্রিফিংয়ে সদর কোম্পানী কমান্ডার আল আসাদ বিন মাহফুজ, সহকারী কমান্ডার লেঃ আজাদ, মিডিয়া উইং কর্মকর্তা এএসপি বজলুর রশিদ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, স্বেচ্ছায় আত্মগোপন করা রফিক হোসেন পল জানান, করোনাকালে নিজের চাকরি হারানো এবং পারিবারিক চাপে নিজে আত্নগোপন করি। এখন ভুল বুঝতে পেরে নিজেকে শুধরে নিতে চান। সে আরও জানায়, আত্মগোপনে থাকাকালে ঢাকায় মাস্ক বিক্রি, শিশুদের খেলনা বিক্রি, নারায়ণগঞ্জ এলাকার পুরাতন বোতল, লোহা কুড়িয়ে বিক্রি করে জীবন নির্বাহ করেছি। পরে সেকান থেকে কক্সবাজারে গিয়ে একটি চায়ের দোকানে কাজ করি। ##

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu