শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
খুলনার বৃক্ষমেলায় প্রায় ৪৯ লাখ টাকার  চারা বিক্রি রূপসায় চিংড়ির পঁচা মাথার গন্ধে মারাত্নক পরিবেশ দুষন, জনজীবন অতিষ্ঠ অবৈধ সরকার অর্থনীতিসহ সার্বিক পরিস্থিতিতে চলতি মাসও টিকে থাকতে পারবে না : বিএনপি রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুরি হওয়া মালামালসহ ০৪ চোর আটক রূপসায় চিংড়িতে অপদ্রব্য পুশ করার সময় হাতেনাতে আটক, ৭জনের কারাদন্ড জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা বিশ্বকে বাংলাদেশের সক্ষমতা দেখিয়ে দিয়েছেন শেখ হাসিনা : সিটি মেয়র শিক্ষকদের পাণ্ডিত্য, গবেষণা ও ব্যক্তিত্ব শিক্ষার্থীরা অনুসরণ করে কুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন মেয়াদকাল শেষ রামপাল কলেজ শিক্ষকের অনিয়মের সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিককে হুমকি, থানায় জিডি

পাইকগাছায় অসহায় পরিবারকে উচ্ছেদের পায়তারা

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় সোমবার, ৬ মে, ২০১৯
  • ৫৫৩ পড়েছেন

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি :
পাইকগাছায় প্রতিপক্ষ মামুন গাজী গংদের বিরুদ্ধে অসহায় পরিবারের ঘরে তালা দেয়া সহ উচ্ছেদ করার পায়তারা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

প্রাপ্ত অভিযোগে জানা গেছে, পৌরসভার সরল গ্রামের গরীব ও অসহায় আইয়ুব আলী সরদার ও রাবেয়া দম্পত্তি উপজেলার গদাইপুর ইউনিয়ন ও পৌরসভার সীমান্তবর্তী বয়রা সুইচ গেট সংলগ্ন ওয়াপদার নিচে সরকারি জায়গার উপর ১৫/১৬ বছর ধরে বসবাস করে আসছে। সম্প্রতি ঘোষাল গ্রামের শওকত গাজীর ছেলে মামুন গাজী গংরা অসহায় পরিবারকে বসত বাড়ী থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করে আসছে। পায়তারার অংশ হিসেবে গত ১ মে প্রতিপক্ষ মামুন গাজী গংরা আইয়ুব আলীর রান্না ঘরে তালা মেরে তার সামনে জোরপূর্বক একটি টালীর ঘর নির্মাণ করে। এ সময় বাঁধা দিতে গেলে তারা মারপিট ও ভাংচুর করে। এ ঘটনায় আইয়ুব আলীর স্ত্রী রাবেয়া বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ মামুন গাজী সহ ৬জনকে বিবাদী করে থানায় অভিযোগ দায়ের করে। এ ব্যাপারে সরেজমিন গেলে আইয়ুব দম্পত্তি জানান, ওয়াপদার স্লোবে আমরা ১৫/১৬ বছর ধরে বসবাস করে আসছি।

প্রতিপক্ষ মামুন গাজী গংরা আমাদের রান্না ধরে তালা দিয়ে টিউবওয়েল ও রান্না ঘরের যাতায়াতের পথে জোরপূর্বক একটি ছাবড়া ঘর নির্মাণ করেছে। যার ফলে ২টি কন্যা সন্তান নিয়ে আমাদের বসবাস করা কঠিন হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে মামুন গাজী জানান, আইয়ুব দম্পত্তিরা আমাদের জায়গা ভাড়া নিয়ে ৪/৫ বছর ধরে বসবাস করে আসছিল। তাদের কোন ঘরে তালা মারা হয়নি। আমাদের ৩টি ঘর রয়েছে। যার একটিতে তালা মেরেছি।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu