মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
তেরখাদায় অস্ত্রসহ একাধিক মামলার আসামি আটক তেরখাদায় নানা কর্মসূচির মাধ্যমে জাতীয় শোক দিবস পালন জাতীয় শোক দিবসের বিশেষ নিবন্ধ : ১৫ আগষ্ট বাঙালি জাতির একটি কলঙ্কিত ইতিহাস যশোরে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সাভারে সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিকের উপর হামলা, হত্যার চেষ্টা শোকাবহ আগস্টে অপশক্তি ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান : এমপি সালাম মূর্শেদী জাতীয় শোক দিবসে বিশেষ প্রতিবেদন : সেই শিশু আজ জগৎ জোড়া কয়রার দক্ষিণ বেদকাশীর রিংবাঁধ ভেঙ্গে এলাকা প্লাবিত, দূর্ভোগে হাজারো মানুষ ভেড়ামারায় তেল পাম্পে ট্যাংকি বিস্ফোরণে নিহত-২, আহত-৪ শিক্ষা কারিকুলায় আঞ্চলিক সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন : উপাচার্য

দাকোপ হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগিদের ভোগান্তি; এক পরিবারের ৪জন চিকিৎসাধীন

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় বুধবার, ২২ মে, ২০১৯
  • ৪৯১ পড়েছেন

গোলাম মোস্তফা খান, দাকোপ, খুলনা: একটানা প্রচন্ড গরমে জনজিবন অতিষ্ঠ। প্রচন্ড এই তাপদাহে দাকোপ সহ পার্শ্ববর্তী কয়েকটি উপজেলার মানুষ ডায়রিয়া সহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে দাকোপ উপজেলা সাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে ভিড় করছে।

গত কয়েকদিন যাবৎ রোগিদের উপছে পড়া ভিড়ে প্রচন্ড গরমে চরম ভোগান্তির মাঝে দাকোপের চালনা হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে হচ্ছে। ৫০ শয্যা বিশিষ্ট এ হাসপাতালে সিটের সংকুলান না হওয়ায় বারান্দায় ও যাতাযাত পথে লম্বালম্বি ভাবে প্রতিদিন বাড়তি আরো কমপক্ষে ৫০ জন রোগিদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে। প্রতিদিন রোগির এত বেশি চাপ যে আউটডোরে বেলা ৯টা থেকে ১টার মধ্যে গড়ে কমপক্ষে ২০০জন রোগি টিকিট নিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

গতকাল বুধবার বেলা ১টার সময় সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় বেড ছাড়াও বারান্দা, চলাচলের পথ, কোথাও তিলধারনের ঠাই নেই রোগিদের ভিড়ে। গাদাগাদি অবস্থায় রেখে স্যালাইন লাগিয়ে ডায়রিয়া সহ নানা রোগের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বেলা ১ টা পর্যন্ত ১৭০ জন রোগি টিকিট নিয়ে আউটডোরে চিকিৎসা নিয়েছে। এর মধ্যে চালনা পৌর এলাকার আনন্দনগর গ্রামের এক পরবিারের ৪ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে বারান্দায় চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা হচ্ছেন মা অব্ধলী (৫০) ছেলে চিন্ময় (২৬)পুত্রবধু তমা (২৪) ও নাতি ৮ মাসের শিশু এছাড়া আরো কয়েকজন ডায়রিয়া রোগিকে বারান্দায় চিকিৎসা নিতে দেখা যায়। তারা হচ্ছেন মোংলার বৈরাগীখালির ফুলমতি (৮০)আচাভূয়ার শিখা (২৪) এমনি ভাবে ডায়রিয়া সহ নানা রোগের ১৩০ এর বেশি রোগি চিকিৎসা নিচ্ছেন ৫০ শয্যা এ হাসপাতালে।

এ বিষয়ে ডা: সন্তোষ কুমার মজুমদারের সাথে কথা হলে তিনি জানান, বেশ কয়েকদিন টানা গরম পড়ায় বাচ্চা ও বৃদ্ধদের বেশি ডায়রিয়া দেখা দিয়েছে, প্রতিদিন আগের তুলনায় অনেক বেশি রোগি আসছে। দাকোপের চালনার এ হাসপাতালে সমগ্র দাকোপ ছাড়াও পার্শ্ববর্তী ৪/৫টি উপজেলা থেকে প্রতিদিন রোগি এসে চিকিৎসা নেয় আর বর্তমানে গরমে আরো বেশি বেশি রোগি আসায় সামাল দেওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে বলে অনেকেই জানান।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: মোজাম্মেল হক নিজামীর সাথে এ বিষয়ে কথা বললে উনি জানান, রোগির চাপ যতই বাড়ুক না কেন আমরা যথাসাধ্য সেবা দিয়ে চলেছি, বলতে গেলে সারা বছরই খুলনার মধ্যে এ হাসপাতালটিতে রোগিদের চাপ বেশি থাকে বর্তমানে আরো বেশি, জনবল কম বলে আমাদের হিমসিম খেতে হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu