ঢাকা ০৮:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দাকোপে বাজুয়া বালিকা বিদ্যালয়ের ৬ষ্ট শ্রেনীর ছাত্রীর আত্মহত্যা

গৌতম সরকার, দাকোপ :

খুলনার দাকোপ উপজেলার বাজুয়া ইউনিয়নের দাসপাড়া নিবাসী শেখর দাসের কন্যা প্রিয়া দাস (১৩) ২১ মে (মঙ্গলবার) সন্ধ্যা  ৬ টার দিকে নিজ বসত ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না জড়িয়ে আত্মহত্যা করে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় বাজুয়া ইউনিয়নের এস এন কলেজের সামনে দাসপাড়ায়  বাজুয়া বালিকা বিদ্যালয়ের ৬ষ্ট শ্রেনীর মেধাবী ছাত্রী প্রিয়া দাস নিজ বসত ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না জড়িয়ে আত্মহত্যা করেছে। এ অপমৃত্যুর কারন সম্পর্কে পরিবার ও এলাকবাসির পক্ষ থেকে প্রাথকিক ভাবে তেমন কোন তথ্য জানা যয়নি। প্রিয়া দাসের মা শিখা দাস কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন আমার মেয়ে পুর্বেও একবার এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে ছিলো। আমরা তাৎক্ষনিক ঠিক পাওয়ায় প্রিয়াকে প্রানে বাঁচাতে পেরে ছিলাম। আজ আমি বাইরে থাকার কারনে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

এ মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসি মৃতের বাড়ি ভীড় জমায়। মৃত্যুর সংবাদে ঘটনাস্থলে কয়েকজন মানবাধিকারকর্মী উপস্থিত হয়ে দাকোপ থানা পুলিশ কে আবহিত করেন।

ঘটানার দিন রাত ১০ টার দিকে দাকোপ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দাকোপ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জনাব মোকাররম হোসেন মুঠো ফোনে জানান, থানায় ঘটনার দিন রাতে একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে । লাশ ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওযার পর মৃত্যু স্বাভাবিক কিনা অস্বাভাবিক তা সঠিকভাবে জানা যাবে।

Tag :
About Author Information

বাংলার দিনকাল

Editor and publisher

দাকোপে বাজুয়া বালিকা বিদ্যালয়ের ৬ষ্ট শ্রেনীর ছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত সময় ০৭:১৪:০৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০১৯

গৌতম সরকার, দাকোপ :

খুলনার দাকোপ উপজেলার বাজুয়া ইউনিয়নের দাসপাড়া নিবাসী শেখর দাসের কন্যা প্রিয়া দাস (১৩) ২১ মে (মঙ্গলবার) সন্ধ্যা  ৬ টার দিকে নিজ বসত ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না জড়িয়ে আত্মহত্যা করে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় বাজুয়া ইউনিয়নের এস এন কলেজের সামনে দাসপাড়ায়  বাজুয়া বালিকা বিদ্যালয়ের ৬ষ্ট শ্রেনীর মেধাবী ছাত্রী প্রিয়া দাস নিজ বসত ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না জড়িয়ে আত্মহত্যা করেছে। এ অপমৃত্যুর কারন সম্পর্কে পরিবার ও এলাকবাসির পক্ষ থেকে প্রাথকিক ভাবে তেমন কোন তথ্য জানা যয়নি। প্রিয়া দাসের মা শিখা দাস কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন আমার মেয়ে পুর্বেও একবার এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে ছিলো। আমরা তাৎক্ষনিক ঠিক পাওয়ায় প্রিয়াকে প্রানে বাঁচাতে পেরে ছিলাম। আজ আমি বাইরে থাকার কারনে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

এ মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসি মৃতের বাড়ি ভীড় জমায়। মৃত্যুর সংবাদে ঘটনাস্থলে কয়েকজন মানবাধিকারকর্মী উপস্থিত হয়ে দাকোপ থানা পুলিশ কে আবহিত করেন।

ঘটানার দিন রাত ১০ টার দিকে দাকোপ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দাকোপ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জনাব মোকাররম হোসেন মুঠো ফোনে জানান, থানায় ঘটনার দিন রাতে একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে । লাশ ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওযার পর মৃত্যু স্বাভাবিক কিনা অস্বাভাবিক তা সঠিকভাবে জানা যাবে।