বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
পঞ্চগড়ের নৌকাডুবিতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৫, নিখোঁজ আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ট্রফি ভাঙা সেই ইউএনওকে ঢাকায় বদলি প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী তিন ফসলি কৃষিজমি ধ্বংস করে কোন কিছু করা যাবে না বাংলাদেশ ও ভারতের মানুষের মধ্যে ঐতিহ্য, কৃষ্টি ও সংস্কৃতির সাদৃশ্যে নানা উৎসবে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ : ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ও নিয়োগের ক্ষেত্রে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে : উপাচার্য শ্যামনগরের কাঁশিমাড়িতে বজ্রপাত প্রতিরোধে তিন কিলোমিটার রাস্তায় তালবীজ বপন রামপালে বিনামূল্যে চিকিৎসা পেলেন ৩ সহস্রাধিক রোগী  খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে রিসার্চ সোসাইটির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা আমাদের সকলের দায়িত্ব : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী রামপাল তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের মালামালসহ ০৬ ডাকাত গ্রেফতার

জেলা পরিষদ নির্বাচনে ১নং দাকোপ থেকে সদস্য প্রার্থী হচ্ছেন এ্যাড.অসীম কুমার বৈদ্য

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় রবিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১৫৯ পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
জেলা পরিষদ নির্বাচনের তপসিল ঘোষণার পর খুলনা জেলা পরিষদের আওতাধীন ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১নং ওয়ার্ড (দাকোপ উপজেলা) থেকে সদস্য পদপ্রার্থী হিসাবে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রার্থীতা ও গনসংযোগ শুরু করেছেন খুলনার সাংস্কৃতিক অঙ্গনের অন্যতম প্রগতিশীল ব্যাক্তিত্ব বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট খুলনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট সমাজ সেবক এ্যাড.অসীম কুমার বৈদ্য।

আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে খুলনা জেলার অন্যান্য উপজেলার ন্যায় দাকোপের ভোটার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সাধারন মানুষের মুখে মুখে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান ও সদস্য পদপ্রার্থীদের নিয়ে চলছে নানান বিচার বিশ্লেষণের মহড়া। দলীয় সমর্থন ও ভোটারদের মনজয় করতে প্রার্থীদের লবিং গ্রুপিং আর দৌড় ঝাঁপ শুরু হয়েছে রীতিমতো। এই নির্বাচন ঘিরে সামাজিক মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে চলছে আগাম প্রচার প্রচারণা।

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত খুলনা জেলা পরিষদ নির্বাচনে দাকোপ উপজেলা থেকে ১নং ওয়ার্ড সদস্য পদপ্রার্থী অসীম কুমার বৈদ্যের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, “আমি ছাত্রজীবন থেকে বিভিন্ন সমাজ কল্যাণমূলক কাজের সাথে জড়িত আছি। ‘স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন’ নামে একটি ছাত্র কল্যাণ সংগঠন প্রতিষ্ঠা করে দীর্ঘদিন ধরে মেধাবী ছাত্রদের সংবর্ধনা, বৃত্তি প্রদানসহ নানান সহযোগিতামুলক কার্যক্রম পরিচালনা করেছি। এছাড়াও দাকোপের কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা, বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা, শিক্ষা সরঞ্জাম প্রদান ও বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করে আসছি। বর্তমানে দাকোপের প্রায় প্রতিটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে আমি সাধ্যমত সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছি। বিভিন্ন ধর্মীও ও সমাজ উন্নয়ন সংস্থার একজন স্থায়ী সদস্য হিসেবে তাদেরকে আর্থিক সহযোগিতা করে থাকি। কর্মজীবনের সুবাদে আমি খুলনা শহরে থাকলেও শুক্রবার ও শনিবার আমি দাকোপ উপজেলার বিভিন্ন ধরনের সামাজিক কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত হয়ে এলাকার মানুষের সুখে দুখে তাদের খোঁজখবর নিয়ে চলেছি।

সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত উদ্যোগে করোনা মহামারীর সঙ্কটময় মুহূর্তে আমি এলাকার দুস্থ অসহায় মানুষদেরকে ত্রাণ সহায়তা দিয়েছি। লকডাউনে গৃহবন্দি করোনা আক্রান্ত রোগীর বাড়িতে আমি ব্যক্তিগত উদ্যোগে খাবার পৌঁছে দিয়েছি।

আমি খুলনাস্থ দাকোপ সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং এই সংগঠন গঠনের একজন উদ্যোক্তা। দাকোপের আইলা পরবর্তী সময়ে গরিব এবং দুঃস্থ মানুষদের ত্রাণ সহযোগিতার জন্য দাকোপ সমিতির উদ্যোগে খুলনা থেকে ত্রাণসামগ্রী টিমের সাথে আমি সক্রিয় সদস্য হিসেবে কাজ করেছি।

আমি বর্তমানে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট খুলনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি পেশা জীবনে খুলনার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ সেন্ট জোসেফস উচ্চ বিদ্যালয়ে বাংলা বিষয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে ১৮ বছর কর্মরত আছি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে জননেত্রী শেখ হাসিনার সকল উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে একজন সচেতন ও নিষ্ঠাবান কর্মী হিসাবে নতুন প্রজন্মের প্রতিনিধিত্ব করতে আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে আমি সদস্য প্রার্থী হিসাবে সকল ভোটারদের সুচিন্তিত মতামত, সমর্থন ও আশীর্বাদ বা দোয়া প্রার্থনা করছি।”

গত ২৩ অগাস্ট নির্বাচন কমিশন কতৃক তিন পার্বত্য জেলা বাদ দিয়ে ৬১ জেলা পরিষদে ভোটের তফসিল ঘোষণায় সারা দেশের ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা, উপজেলা ও সিটি করপোরেশনের নির্বাচিত ৬৩ হাজারের বেশি জনপ্রতিনিধি ভোট দেবেন। এবার ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে) ভোট দেবেন ভোটাররা। এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসাবে দায়িত্বে থাকছেন জেলা প্রশাসক।

তফসিল অনুযায়ী, আগ্রহী প্রার্থীরা ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারবেন । ১৮ সেপ্টেম্বর বাছাইয়ের পর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৫ সেপ্টেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ২৬ সেপ্টেম্বর এবং মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার হতে ২১ দিন পর ১৭ অক্টোবর সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ হবে।

নির্বাচন কমিশনের তথ্য মতে, এবারের নির্বাচন হবে জেলা পরিষদ (সংশোধন) আইন, ২০২২ অনুসারে। এতে প্রথমবারের সঙ্গে সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদের সংখ্যায় কিছু পার্থক্য হবে। আগে প্রতি জেলায় যেখানে ১৫ জন সাধারণ সদস্য এবং পাঁচজন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য থাকার বিধান ছিল। তা সংশোধন করে এবার প্রত্যেক উপজেলায় (জেলার মোট উপজেলার সমান সংখ্যক) একজন করে সদস্য এবং চেয়ারম্যানসহ সদস্যদের মোট সংখ্যার এক-তৃতীয়াংশ নারী সদস্য নিয়ে জেলা পরিষদ গঠিত হবে। উপজেলার সংখ্যা যাই হোক, সংরক্ষিত নারী সদস্য দুইজনের কম হতে পারবে না।

সংশোধিত আইন অনুযায়ী, এবার খুলনা জেলা পরিষদে ১৩ জন নির্বাচিত হবেন বলে জানিয়েছেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এম মাজহারুল ইসলাম।তিনি বলেন, নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ৯৭৮ জন। তাদের ভোটে একজন চেয়ারম্যান, নয়জন সাধারণ সদস্য এবং তিনজন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য নির্বাচিত হবেন।

খুলনা জেলা পরিষদ নির্বাচনে সংশোধিত আইনানুসারে এ বছর খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র, ৩১ কাউন্সিলর, ১০ সংরক্ষিত কাউন্সিলর, ৬৮ ইউপি চেয়ারম্যান, নয় উপজেলা চেয়ারম্যান, ১৮ ভাইস চেয়ারম্যান, সব সাধারণ ও সংরক্ষিত ইউপি সদস্য ভোটার হিসাবে গণ্য হবেন।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu