শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
খুলনার বৃক্ষমেলায় প্রায় ৪৯ লাখ টাকার  চারা বিক্রি রূপসায় চিংড়ির পঁচা মাথার গন্ধে মারাত্নক পরিবেশ দুষন, জনজীবন অতিষ্ঠ অবৈধ সরকার অর্থনীতিসহ সার্বিক পরিস্থিতিতে চলতি মাসও টিকে থাকতে পারবে না : বিএনপি রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুরি হওয়া মালামালসহ ০৪ চোর আটক রূপসায় চিংড়িতে অপদ্রব্য পুশ করার সময় হাতেনাতে আটক, ৭জনের কারাদন্ড জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা বিশ্বকে বাংলাদেশের সক্ষমতা দেখিয়ে দিয়েছেন শেখ হাসিনা : সিটি মেয়র শিক্ষকদের পাণ্ডিত্য, গবেষণা ও ব্যক্তিত্ব শিক্ষার্থীরা অনুসরণ করে কুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন মেয়াদকাল শেষ রামপাল কলেজ শিক্ষকের অনিয়মের সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিককে হুমকি, থানায় জিডি

খুবির ভাষ্কর্য ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে শিল্প ও জীবন শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৬৬৭ পড়েছেন

দিনকাল ডেক্স :

শিল্পকে জঙ্গিবাদ ও মৌলবাদ মোকাবেলার মাধ্যম হিসেবে তুলে ধরতে হবে: উপাচার্য ।মানুষ ছাড়া আর কারও শিল্প ও ভাষা নেই, বিশ্লেষণ বা মূল্যায়ণের বোধ নেই: বিশ্বভারতীর ভূতপূর্ব উপাচার্য পবিত্র সরকার। খুবির ভাষ্কর্য ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে শিল্প ও জীবন শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা এ কথা বলেন।

 ২ এপ্রিল ২০১৯ খ্রি. তারিখ সকাল ১১টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে ভাষ্কর্য ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে শিল্প ও জীবন শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। ভাস্কর্য ডিসিপ্লিন প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) মো. শেখ সাদী ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। মুখ্যবক্তা ছিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গস্থ বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতপূর্ব উপাচার্য প্রফেসর ড. পবিত্র সরকার। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ এবং চারুকলা স্কুলের ডিন (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মোঃ মনিরুল ইসলাম।

প্রধান অতিথি উপাচার্য বলেন, জীবনের সাথে শিল্পের অঙ্গাঙ্গি সম্পর্ক রয়েছে। জীবনের সকল ক্ষেত্রে আমরা শিল্পের ছোঁয়া লক্ষ্য করি। তবে শিল্পকে অনুধাবন করার মতো বোধ থাকতে হবে। যে ব্যক্তি ও সমাজে শিল্পবোধ রয়েছে, নান্দনিকতাবোধ রয়েছে, যে সমাজে ঐক্যতান রয়েছে, সেখানের মানুষ দায়িত্বশীল হয়, সে রাষ্ট্রে বিশৃঙ্খলা হতে পারে না, এতো আইন-কানুনেরও প্রয়োজন পড়ে না। প্লেটোর দর্শনও ছিলো এমন এক সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন। তিনি বলেন আমরা এমন দেশ ও সমাজ চাই যেখানে মানুষের মধ্যে শিল্পবোধ তৈরি হবে, যেখানে কোকিলের কুহু ডাকে, নদীর ঢেউয়ে, শিল্পীর গানে, শিল্পীর আঁকা ছবিতে মাুষের প্রাণ ভরে উঠবে, হৃদয়ে ভালো বোধের সৃষ্টি করবে। তিনি বলেন, ভালোবাসাও এক ধরনের শিল্প। যে মানুষের মধ্যে সৌন্দর্য চেতনা আছে, মানবিক মূল্যবোধ আছে, শিল্পবোধ আছে সে মানুষ অন্যকোনো মানুষকে হত্যা করতে পারে না। তাই আমাদেরকে সমাজে শিল্পবোধের প্রসার ঘটাতে হবে। শিল্পকে জঙ্গিবাদ ও মৌলবাদ মোকাবেলার মাধ্যম হিসেব তুলে ধরতে হবে। তিনি শিল্প ও জীবন সর্ম্পকে ভারতের প্রথিতযশা শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকারের বক্তব্য থেকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অত্যন্ত ভালো ধারনালাভের সুযোগ হলো যা চারুকলার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনুপ্রেরণা যোগোবে বলে উল্লেখ করেন।

মুখ্যবক্তা রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতপূর্ব উপাচার্য প্রফেসর ড. পবিত্র সরকার তাঁর ঘন্টাব্যাপী অত্যন্ত বিশ্লেষণমূলক ও সারগর্ভ বক্তব্যে শিল্পের প্রাচীন থেকে আধুনিক পর্বের ক্রমবিকাশ, পরিচিন্তন ও নানা উদাহারণ, উপামা উল্লেখ করেন । তিনি বলেন মানুষ ছাড়া আর কোনো প্রাণি ও উদ্ভিদের শিল্প ও ভাষা নেই, তাঁর মূল্যায়ণ বা বিশ্লেষণের শক্তিও নেই। বাবুই পাখি ভালো বাসা তৈরি করে, কোকিল কুহুতানে ডাকে, অন্য অনেক প্রাণির নিজস্ব প্রকাশভঙ্গি আছে । কিন্ত তাই বলে তাদের নেই কোনো বর্ণমালা, ভাষা। তারা যা তৈরি করে সেটা কী শিল্প, তার মধ্যেকার কী সৌন্দার্য সে বােধ তাদের নইে। এটা কেবল মানুষের আছে। দশহাজার বছরেরও বেশি সময়ধরে যে সভ্যতার ক্রমবিকাশমান ধারা এই পার্থিবজগতকে সামনে এগিয়ে নিয়ে চলেছে সেখানে মানুষই একক সত্তা, মানুষের চিন্তা ও চেতনার প্রবহমানতাই কাজ করেছে। মানুষ জীবনের মধ্যেই শিল্পের অজ¯্র ধারা খুঁজে পেয়েছে, জীবনের জন্যই নতুন সৃষ্টির তাগিদ অনুভব করেছে। এ জন্য মানুষের আকাঙ্খা অপরিসীম। মানুষ সবসময়ই তাঁর সৃষ্টিকে অতিক্রম করতে চেয়েছে, সামনে অগ্রসরমান হতে চেয়েছে। সহজ শিল্পকে চর্চা করে, সহজ কবিতা, সাহিত্যকে চর্চা করে আরও জটিলতার দিকেই ধাবিত হয়েছে। মানুষ তার এ জীবনের সীমাবদ্ধ সময়ের মধ্যে সবসময়ই অবস্থান নিতে চেয়েছে এবং তাঁকে কেন্দ্র করে নতুন চিন্তা ও সৃষ্টিশীলতার অবিরাম চলার পথ আজও চলমান এবং শিল্প সময়ই তাই জীবনকে ঘিরে, জীবনের বহুবর্ণিল অভিগম্যতাকেও অতিক্রমের চেষ্টা করে করে নতুন নতুন সৃষ্টির প্রেরণা পেয়েছে। তিনি বলেন, শিল্পীদের চাকরির পরিধি হয়তো অতোটা নেই, কিন্ত তাদের কর্মের পরিধি অসীম। তাদের শৈল্পিক চেতনার প্রগঢ়তা সাধারণ মানুষকে মুগ্ধ করে, চেতনা জাগিয়ে তোলে। তবে তিনি বলেন, ভালো শিল্পী না হলেও, ভালো গায়ক না হলেও ভালো দর্শক ও শ্রোতা হয়ে ওঠার জন্যও শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ দরকার। ভারতের একজন পন্ডিত ব্যক্তির উক্তি উচ্চারণ করে তিনি বলেন ‘তান সেন না হতে পারলেও কান সেন তো হওয়া যায়।’

অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ ভাষ্কর্য ডিসিপ্লিন প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) মো. শেখ সাদী ভূঁইয়া রচিত বাঙালি বাঙলার শিল্প-সংস্কৃতি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট চারুকলা স্কুলের ডিসিপ্লিন প্রধানসহ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে আজ বিকেল পাঁচটায় রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতপূর্ব উপাচার্য প্রফেসর ড. পবিত্র সরকার উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামানের সাথে তাঁর কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাত করেন। উপাচার্য প্রতিথযশা এ শিক্ষাবিদের খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে সফরের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। তিনি বিভিন্ন সুযোগ ও সুবিধামত সময়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসার আবারও আমন্ত্রণ জানান। প্রফেসর পবিত্র সরকার খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ এবং এখানকার বিষয় বৈচিত্র্যের জন্য উপাচার্যকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। এসময় চারুকলা স্কুলের ডিন (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মোঃ মনিরুল ইসলাম, রেজিস্ট্রার(ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস, ভাষ্কর্য ডিসিপ্লিন প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) মো. শেখ সাদী ভূঁইয়া, প্রফেসর ড. সঞ্জয় কুমার অধিকারী, প্রফেসর ড. মাহতালাত আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu