শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শাশুড়ির অনৈতিক সম্পর্কে বাঁধা দেওয়ায় শিশুসন্তানসহ গৃহবধুকে নির্যাতন; মামলা তুলে না নিলে হত্যার হুমকী তেরখাদায় জাতির পিতার ম্যুরাল ‘বঙ্গবন্ধু স্টেট ম্যান অব দ্য সেঞ্চুরি’ এর উদ্বোধন কয়রায় ট্রিপল মার্ডারের নেপথ্যে ছিলো অবৈধ সম্পর্ক ও প্রতারণামূলক আর্থিক লেনদেন ভারত সরকারের উপহারের লাইফ সার্পোট এ্যাম্বুলেন্স এলো খুলনা ডায়াবেটিক হাসপাতালে বাগেরহাটে সরকারী স্কুলের সভাপতির বিরুদ্ধে ১০লাখ টাকার গাছ কেটে আত্নসাতের অভিযোগ, শাস্তির দাবী দূর্ঘটনারোধে খুলনা মহানগরীর সড়ক ও ট্রাফিক ব্যবস্থা এবং বাস্তবতা শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সুশাসন প্রতিষ্ঠায় গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক সেমিনারে সাংবাদিকদের নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালনের আহবান সপ্তাহ ব্যাপী শীতবন্ত্র বিতরণ; প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার ভিত্তিক প্রকল্প রামপাল পাওয়ার প্লান্ট বহুমুখি সামাজিক কাজ করছে শীতের সকালে সীমান্তের হাজারো মুখে ফুঠলো উষ্ণ হাসি ওমিক্রন প্রতিরোধে জনসচেতনতায় তরুণ সমাজকে এগিয়ে আসার আহবান

মানসিক নির্যাতনে কুয়েট শিক্ষকের মৃত্যুর অভিযোগ; ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১৫৩ পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ও লালনশাহ হলের প্রভোষ্ট ড. মোঃ সেলিম হোসেনকে কুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সেজান এর নের্তৃত্বে তাঁর অনুসারি কিছু সাধারণ ছাত্র কর্তৃক অশালীন ভাষায় জেরা, অপমান, অবরুদ্ধ করে রাখা ও মানসিক নির্যাতনে তাঁর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

কুয়েট ক্যাম্পাসে আন্দোলনরত সাধারণ ছাত্রদের মাধ্যেমে জানা গেছে, সম্প্রতি কুয়েটের লালনশাহ হলের ডিসেম্বর মাসের খাদ্য-ব্যবস্থাপক (ডাইনিং ম্যানেজার) নির্বাচন নিয়ে, ফজলুল হক হলের বর্ডার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সেজান তাঁর নিজ অনুসারি ছেলেদের ডাইনিং ম্যানেজার নির্বাচিত করার প্রচেষ্টার জন্য ঘটনার দিন ড. মোঃ সেলিম এর দাপ্তরিক কক্ষে অশালীন আচরণ ও মানুষিক নির্যাতন করে। এছাড়াও সাধারণ সম্পাদকসহ উপস্থিত ছেলেরা, হলের প্রভোষ্ট ড. সেলিম হোসেনকে বেশ কয়েকদিন ধরে নিয়মিত হুমকি দিয়ে আসছিলেন, তাদের মনোনীত প্রার্থীকে নির্বাচন করার জন্য। তারই ধারাবাহিকতায়, মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সাদমান নাহিয়ান সেজানের নেতৃত্বাধীন ছাত্ররা ক্যাম্পাসের রাস্তা হতে ড. সেলিম হোসেনকে জেরা করা শুরু করে। পরবর্তীতে তারা শিক্ষককে অনুসরণ করে তার ব্যক্তিগত কক্ষে (তড়িৎ প্রকৌশল ভবন) প্রবেশ করে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, তারা আনুমানিক আধা ঘন্টা ওই শিক্ষকের সাথে রুদ্ধদার বৈঠক করে। পরবর্তীতে, শিক্ষক ড. সেলিম হোসেন দুপুরে খাবারের উদ্দেশ্যে ক্যাম্পাসের নিকটস্থ বাসায় যাওয়ার পর দুপুর ২টা নাগাদ তার স্ত্রী লক্ষ্য করেন তিনি বাথরুম থেকে বের হচ্ছেন না। পরে, দরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে, কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর ঘটনায় সাধারণ ছাত্ররা বিক্ষুব্ধ হয়ে অপমৃত্যুর অভিযোগ এনে ড. মোঃ সেলিম এর কফিনসহ অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে ভাইস-চ্যান্সেলর এর কাছে বিচার চায় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মামলার জোর দাবি জানায়। আন্দোলনরত ছাত্রদের সাথে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দীর্ঘ সভা শেষে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়।

অভিযোগে সূত্রে জানা যায়, উক্ত ঘটনার পর সেজান বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আসলাম পারভেজসহ কয়েক জন ঘটনাটিকে ভিন্ন খাতে প্রভাবিত করার জন্য আলোচনা করেন। বিষয়টি নিয়ে প্রকৌশলী আসলাম, প্রকৌশলী রুমেন রায়হান, প্রকৌশলী রাজিন ভাইস-চ্যান্সেলর এর সাথে আলোচনা করেন এবং তড়িঘড়ি করে লাশ দাফনের ব্যবস্থা করেন। বিষয়টি সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানতে পেরে আন্দোলনে নামেন। বুধবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে ছাত্ররা প্রশাসনিক ভবনে ভিসির সাথে দেখা করতে আসলেও ভিসি সুকৌশলে পালিয়ে যান। ছাত্ররা না খেয়ে আন্দোলন করলেও তিনি দিব্বি বাংলোয় অবস্থান করেন। তাঁর মুঠোফোনে (০১৭১১-৮৮৪০৪৪) একাধিকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে জানতে কুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সেজানের নাম্বারে (০১৭৫৫-৪৮০৬২৮) একাধিকবার কল দিলে তিনিও ফোন রিসিভ করেন নি।

এদিকে সামাজিক গণযোগাযোগ মাধ্যমে উক্ত ঘটনার সিসি টিভি ফুটেজ ছড়িয়ে পড়েছে। শিক্ষক মহলে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। শিক্ষক প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম হোসেনের অপমৃত্যুকে কেন্দ্র করে শিক্ষক সমিতি বুধবার (১ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় কুয়েট অডিটোরিয়ামে এক জরুরী সাধারণ সভা করেন। সভায় শিক্ষক সমিতি বুধবার রাত ১২টার মধ্যে সংশিষ্ট ছাত্রদের বহিস্কার এবং উক্ত ঘটনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত সকল ক্লাস, পরীক্ষা বর্জনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর এর পক্ষ থেকে এ নিয়ে কোন বিবৃতি দেয়া হয়নি।

এদিকে বর্তমানে সরকারী চাকরীরত কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শোভন ও সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সিজান কুয়েটের বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত থাকার কারণে কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি গঠনের দাবি জানান ছাত্রলীগের সাধারণ নেতাকর্মিরা।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu