মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৫:২৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বিশেষ নিবন্ধ : শ্রাবনের চরিত্রহনণ বঙ্গবন্ধু হয়ে ওঠার পেছনের অনুপ্রেরণা বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বাংলাদেশ-ভারত আমদানি-রফতানি চুক্তির প্রথম ট্রায়ালের পণ্য মোংলায় খালাস : মেঘালয় ও আসামের উদ্দেশ্যে যাত্রা নির্বাচন আসলেই এদেশের কিছু ধান্দাবাজ একত্রিত হয় : তালুকদার খালেক দেশে রিজার্ভ নেই-একদিন দেখবেন শেখ হাসিনাও মসনদে নেই : বিএনপি বঙ্গমাতার গুণাবলী ধারণ করে মেয়েদের এগিয়ে যেতে হবে : খুবি উপাচার্য বঙ্গবন্ধুর বাঙালির মুক্তির মহানায়ক হয়ে ওঠার পেছনে প্রেরণা ছিলেন  বঙ্গমাতা : সিটি মেয়র বঙ্গবন্ধু ছিলেন জাতির কান্ডারি ও রাজনীতির কবি : এসডিএফ চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ বাংলাদেশ-ভারত ট্রানজিট চুক্তি বাস্তবায়নে ভারতের ট্রায়াল জাহাজ মোংলা বন্দরে’ খুলনায় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকীতে দু:স্থ্যদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন

ক্ষুদে ডাক্তার কার্যক্রম বিষয়ে অ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯
  • ৬৫৪ পড়েছেন

তথ্যবিবরণী :
ফাইলেরিয়াসিস নির্মূল, কৃমি নিয়ন্ত্রণ ও ক্ষুদে ডাক্তার কার্যক্রম আওতায় আগামী ২ থেকে ৭ মার্চ, ২০১৯ তারিখ দেশের সকল প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্ষুদে ডাক্তার কর্তৃক শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা কার্যক্রম শুরু হবে। এতে শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকেই ক্ষুদে ডাক্তার নির্বাচিত করা হবে।

এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে খুলনার স্কুল হেলথ ক্লিনিক সম্মেলনকক্ষে সিভিল সার্জন অফিসের আয়োজনে জেলা পর্যায়ের অ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন খুলনার সিভিল সার্জন ডা. এএসএম আব্দুর রাজ্জাক।
সিভিল সার্জন বলেন, সরকার শিশুদের স্বাস্থ্যের উন্নয়নে কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। কৃমি মূলত পরজীবী। কৃমি শিশুদের মেধার বিকাশ ক্ষতিগ্রস্থ করে এবং শিশুরা মারাত্মক অপুষ্টিতে ভোগে। এর প্রতিরোধ করতে হলে শিশুদের কৃমি নাশক ট্যাবলেট খাওয়াতে হবে। শিশুদের পাশাপাশি পরিবারের অন্যান্য সকল সদস্যকেও কৃমি নাশক ট্যাবলেট খেতে হবে। তিনি এই কার্যক্রম সফল করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

সভায় জানানো হয়, আগামী ২ থেকে ৭ মার্চ পর্যন্ত জেলার নয়টি উপজেলা ও দুইটি পৌরসভাসহ এক হাজার সাতশ ১৮টি প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৫ থেকে ১২ বছরের দুই লাখ ৩০ হাজার ৫৮ শিক্ষার্থীকে এবং চারশ ২৫টি মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১২ থেকে ১৬ বছরের এক লাখ ৬৩ হাজার নয়শ ৬৪ শিক্ষার্থীকে ক্ষুদে ডাক্তার কর্তৃক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাধ্যমে বয়স অনুপাতে তাদের সঠিক ওজন, উচ্চতাসহ দৃষ্টিশক্তির ত্রুটি নির্ণয় করা হবে।

অ্যাডভোকেসি সভায় ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মো. আতিয়ার রহমান শেখ, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, উপজেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, স্বাস্থ্য পরিদর্শক এবং সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক অংশগ্রহণ করেন।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu