শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৯:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
বিএনপিকে রাজপথে শক্ত হাতে মোকাবেলা করা হবে লেখাপড়ার সাথে খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক চর্চা একান্ত প্রয়োজন -সিটি মেয়র কলাপাড়ায় ২০ কেজি মাংসসহ দুই হরিন শিকারী আটক তেরখাদায় জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মফিজুর রহমানের শীতবস্ত্র বিতরণ শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান: তেরখাদায় এমপি আব্দুস সালাম মূর্শেদী মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক স্থাপনা নির্মাণে প্রধান শিক্ষকের চক্রান্ত ! চট্টগ্রামের হটহাজারীতে মন্দিরে হামলা ও ভাংচুর মামলার আসামীর কারাগারে মৃত্যু পতাকাসহ পাকিস্তান দলকে দেশে ফেরত পাঠানো উচিত : তথ্যপ্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ ভবদহের স্থায়ী জলাবদ্ধতা নিরসনে ভুক্তভোগীদের অবস্থান কর্মসূচি পালন করোনাকালীন এক লাখ ৩৫ হাজার শ্রমিককে চিকিৎসা সেবা দিয়েছে শ্রম কল্যাণ কেন্দ্র

মধু আহরণের মৌসুম শুরু, বন বিভাগের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৮০২ পড়েছেন

অরবিন্দ কুমার মণ্ডল, কয়রা (খুলনা) : 
সুন্দরবনের মধু আহরণের মৌসুম ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। মৌয়ালরা মধু সংগ্রহের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে সুন্দরবনে প্রবশে করেছে।

চলতি মৌসুমে বাঘের আক্রমণের ঝুঁকির পাশাপাশি বনদস্যুদের হামলার ভয় মাথায় নিয়ে তাদের বনে যেতে হয়েছে। তবে মধু আহরণ মৌসুমকে সামনে রেখে সুন্দরবন পশ্চিম বিভাগে নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা বলয়। বাওয়ালীরা বন দস্যুদের ভয় নিয়ে সুন্দরবনে প্রবেশ করলেও আইনশৃংখলা বাহিনী ও বন বিভাগের সাঁড়াশি অভিযাণে সুন্দরবন এখন বনদস্যু মুক্ত প্রায়। বনদস্যুদের ব্যাপারে বন বিভাগের দাবী মৌওয়ালরা কোন অভিযোগ না করায় এ বিষয়ে কোন ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছে না।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে,সুন্দরবনের মধু সু-মিষ্টি, এ বনের মধু মহৌষধ ও প্রাকৃতিক সম্পদ। মধু দেশের চাহিদা মিটিয়ে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। তবে মৌয়ালরা মধু আহরণ করতে গিয়ে বাঘ, সাপ, কুমিরের সাথে জীবন বাজি রেখে এবং ভয়ংকর বন দস্যুদের চাঁদা, মুক্তিপণ মাথায় নিয়ে সুন্দরবনে মধু আহরণ করতে হচ্ছে। চলতি বছর বন বিভাগের কোন হয়রানী ছাড়াই পাশ পারমিট নিয়ে সুন্দরবনে প্রবেশ করতে পেরে বেশ খুশি বাওয়ালীরা। খুলনা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মোঃ আবু সালেহ জানান, মৌয়ালরা কোন প্রকার হয়রানীর শিকার না হয় তার জন্য সকল স্টেশন ও টহল ফাঁড়ীর কর্মকর্তা কর্মচারীদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বন বিভাগের কোন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোন প্রকার অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বন বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, ১লা এপ্রিল থেকে মধু আহোরণের মৌসুম শুরু হয়েছে। ১৫ জুন পর্যন্ত মধু আহরণ চলবে। সুন্দরবনের বিভিন্ন স্টেশন থেকে মৌয়ালরা পাশ পারমিট নিয়ে বনে যাচ্ছে। খুলনা, সাতক্ষীরা সহ উপকূলীয় এলাকার ১৯-২০টি উপজেলার মৌয়ালরা বিভিন্ন মহাজনের অধীনে মধু সংগ্রহ করতে বনে প্রবেশ করে। সুন্দরবন বন বিভাগের পশ্চিম বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে পশ্চিম বন বিভাগ থেকে ১৭৫০ কুইন্টাল মধু ও ৪৪০ কুইন্টাল মোম আহরণের লক্ষ্য মাত্রা রয়েছে। এর মধ্যে খুলনা রেঞ্জে ৭০০ কুইন্টাল মধু ও ১৭৫ কুইন্টাল মোম এবং সাতক্ষীরা রেঞ্জে থেকে ১০৫০ কুইন্টাল এবং ২৬৫ কুইন্টাল মোম। এ বছর বড় ধরনের কোন বিপর্যয় না হলে লক্ষ্য মাত্রার চেয়ে বেশি মধু আহরণের আশা করছে বন বিভাগ। কাশিয়াবাদ স্টেশন কর্মকর্তা মোঃ সুলতান মাহমুদ হাওলাদার বলেন, মধু আহরণ মৌসুমে কোন বাওয়ালী কোন প্রকার হয়রানী না হয় তার জন্য বন বিভাগের পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক তদারকি করা হচ্ছে। নির্বিঘ্নে মধু আহরণ করতে মৌয়ালদেরকে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

কয়রা উপজেলার ৪নং কয়রা গ্রামের মৌয়াল রফিকুল সানা জানায়, তারা মহাজনের কাছ থেকে দাদন নিয়ে বনে মধু আহরণের জন্য প্রবেশ করেছে। সরকারী কিংবা বে সরকারী কোন প্রতিষ্ঠান থেকে বিনা সুদে লোন দিলে তাদের পক্ষে ভাল হতো। একাধিক মধু আহরণকারী মৌয়ালদের দাবী মধু আহরণ মৌসুমে সল্প সুদে তাদের লোন দিলে তারা মহজনী প্রথা থেকে দুরে থাকতে পারতো। সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগের ডিএফও মোঃ বশিরুল-আল মামুন বলেন, ১ এপ্রিল থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত মধু আহরণ চলবে। মৌয়ালদের নিরাপত্তার জন্য বন বিভাগের টহল কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। সুন্দরবনে বনজীবি মৌয়ালরা মধু আহরণে বনের ভিতর নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারে তার জন্য বন বিভাগের পক্ষ থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ
© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)
Hwowlljksf788wf-Iu