রাসেল ঝড়ের অবিশ্বাস্য জয়ে বিপিএল ফাইনালে রাজশাহী

245

ভাস্কর বিশ্বাস :
বুধবার চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে হারিয়ে বিপিএলের ফাইনালে রাজশাহী। আগামী শুক্রবারের ফাইনালে রাজশাহীর প্রতিপক্ষ খুলনা।

দ্বিতীয় কোয়ালিফাইনালে একটি ঝড় উঠেছিল। প্রথম ঝড়টা ম্যাচের শুরুতে, তখন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স সব ক্ষমতা ইনিংসের শুরুতেই ব্যবহার করে ফেলেছিল। রাজশাহী তাদের ক্ষমতা দেখিয়েছে শেষ ৫ ওভারে। শেষে ম্যাচের ফলাফল বদলে দিয়েছে রাজশাহী।

১৫ ওভার শেষে রাজশাহীর রান ৮৯। বাকি ৫ ওভারে রাজশাহীর দরকার ছিল ৭৬ রান। ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫ ওভারে যে রান নেওয়া হয়েছে প্রায় তার কাছাকাছি রান নিতে হবে ৫ ওভারে। কাজটা কঠিন হলেও রাজশাহীর হয়ে আশা ছাড়েনি আন্দ্রে রাসেল। উইকেটে থাকা রাসেলের ঝড়ই প্রায় অবিশ্বাস্য মনে হওয়া জয় এনে দিল রাজশাহীকে।
প্রথম দুই ওভারে মাত্র ৭ রান দেওয়া রুবেল হোসেনের বলে তিন ছক্কায় নেওয়া হলো ১৯।এর মাঝে দুই ছক্কা রাসেলের অন্যটি মোহাম্মদ নওয়াজের। রায়াদ এমরিতের পরের ওভারে ২০ রান। শেষ ৫ ওভারে ৭৬ রানের সমীকরণে দাঁড়িয়ে রাসেল সর্বোচ্চই করেছেন।সঙ্গে দুই উইকেটও হারিয়েছে রাজশাহী। নওয়াজ ও ফরহাদ রেজা অবশ্য আউট হওয়ার আগে একটা করে ছক্কা মেরেছেন।

শেষ ৩ ওভারে দরকার ছিল ৩৭ রান। রুবেলের বলে বারবার চেষ্টা করেও ব্যাটে বলে করতে পারেনি রাসেল। রুবেলের শেষ বলে ছক্কা মেরে সমীকরণটা ১২ বলে ৩১ রানে নামিয়ে আনেন রাসেল। মেহেদী হাসানের পরের ওভারে টানা ৩ বলে দুই ছক্কা ও এক চারে ১৬ রান তুলেছেন রাসেল। ২৩ রানের এক ওভারে রাজশাহী এগিয়ে গেল বহু দূর।
প্রথমবারের মতো বল তুলে দেওয়া হলো আসেলা গুনারত্নেকে। শেষ ওভারে ৮ রান দরকার ছিল রাজশাহীর। প্রথম দুটি বলে কোন রান আসেনি পরের বলে ওয়াইড। চার বলে ৭ রান দরকার ছিল। গুনারত্নের নো বলে ছক্কা মেরে ম্যাচ শেষ করে দিলেন রাসেল।
বিপিএলে এবারের নিজের প্রথম ফিফটিটা সঠিক সময়ের জন্য জমিয়ে রেখেছিলেন রাসেল। ৫৪ রানের পথে দুটি চার আর সে সঙ্গে বিশাল ৭টি ছক্কা। শেষ ছক্কাতেই ২২তম বলে ফিফটিও হয়ে গেল রাসেলের।

এর আগে ক্রিস গেইলের ২৪ বলে ৬০ রানের ঝড় দেখেছে দর্শক। ৬ চার ও ৫ ছক্কার সে ইনিংসের সঙ্গে মাহমুদউল্লাহর ১৮ বলে ৩৩ রান চট্টগ্রামকে মাত্র ৯.৪ ওভারে ১০০ রান এনে দিয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here