সুখে দুঃখে পাশে থেকে একসাথে এগিয়ে চলেছে দুই দেশ -ভারতীয় সহ:হাই কমিশনার

19

নিজস্ব প্রতিবেদক :

সোমবার সকালে খুলনা সরকারি বিএল কলেজে এক বৃক্ষ রোপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খুলনাস্থ ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার রাজেশ কুমার রাইনা বলেন, একই সংস্কৃতি এবং ভাষাগত কারণে বাংলাদেশ ও ভারতের মানুষের মাঝে আত্মিক বন্ধন গড়ে উঠেছে। একে অপরের সুখে দুঃখে পাশে থেকে একসাথে এগিয়ে চলেছে দুই দেশ। আচার, অনুষ্ঠান ও সংস্কৃতি বিনিময়ের মাধ্যমে আমরা হৃদয়ের ভালবাসা সমুন্নত রাখতে সক্ষম হয়েছি। এই পৃথিবীতে মানুষের আসল বন্ধু হলো বৃক্ষ। যে প্রকৃতি আমাদের বাঁচিয়ে রাখে, সেই প্রকৃতিকে সুস্থ রাখতে বৃক্ষ রোপনের বিকল্প নেই।

ভারতের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দুই দেশের সংস্কৃতি, ভাষা ও ইতিহাসের ঐতিহ্য তুলে ধরতে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে কলেজের অধ্যক্ষ শরীফ আতিকুজ্জামান বলেন, ‘ভারত বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে তাদের ঋণ কখনও ভুলবার নয়। যুদ্ধের সময় তারা লাখ লাখ শরনার্থীদের সহায়তা করেছে। তাদের সেনারা আমাদের জন্য আত্মাহুতি দিয়েছেন।’ ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধিকে স্মরণ করে তিনি আরও বলেন, ‘এই মহিয়সী নারী ওই সময় আমাদের সাহায্যে এগিয়ে না আসলে আমরা বিপদ কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হতাম না।’ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খুলনাস্থ সহকারী হাই কমিশনের সেকেন্ড সেক্রেটারী অসিম কুমার সানত্রা, এটাচি মনজ কুমার পান্ডে, কলেজের অধ্যাপক ড. হামিদুল ইসলাম খান, অধ্যাপক তবিবর রহমানসহ কলেজের বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

এর আগে ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার রাজেশ কুমার রাইনা বিএল কলেজ প্রাঙ্গনে একটি মহেগনি ও দু’টি ইউলিবেল ফুলের চারা রোপন করেন।