মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বাংলাদেশ-ভারত আমদানি-রফতানি চুক্তির প্রথম ট্রায়ালের পণ্য মোংলায় খালাস : মেঘালয় ও আসামের উদ্দেশ্যে যাত্রা নির্বাচন আসলেই এদেশের কিছু ধান্দাবাজ একত্রিত হয় : তালুকদার খালেক দেশে রিজার্ভ নেই-একদিন দেখবেন শেখ হাসিনাও মসনদে নেই : বিএনপি বঙ্গমাতার গুণাবলী ধারণ করে মেয়েদের এগিয়ে যেতে হবে : খুবি উপাচার্য বঙ্গবন্ধুর বাঙালির মুক্তির মহানায়ক হয়ে ওঠার পেছনে প্রেরণা ছিলেন  বঙ্গমাতা : সিটি মেয়র বঙ্গবন্ধু ছিলেন জাতির কান্ডারি ও রাজনীতির কবি : এসডিএফ চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ বাংলাদেশ-ভারত ট্রানজিট চুক্তি বাস্তবায়নে ভারতের ট্রায়াল জাহাজ মোংলা বন্দরে’ খুলনায় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকীতে দু:স্থ্যদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন শেখ হাসিনার পায়ের নিচে মাটি নেই-দেশে রিজার্ভ নেই : বিএনপি খুলনাসহ দেশের মৎস্য সেক্টরে অভাবনীয় সাফল্য এসেছে : মৎস্য সচিব

রূপসায় অস্ত্রও গুলিসহ যুবক গ্রেফতার

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় রবিবার, ৭ জুলাই, ২০১৯
  • ২৮৮ পড়েছেন

রূপসা প্রতিনিধি :

খুলনা জেলা ডিবি পুলিশ এক বিশেষ অভিযানে পূর্ব রূপসা এলাকা থেকে পূর্ববাংলা কমিউনিষ্ট পার্টির আঞ্চলিক লাল্টু বাহিনীর প্রধান মোঃ জহিরুল ইসলাম ওরফে লাল্টু গাজী (৩৩) কে একটি অত্যাধুনিক পিস্তলসহ গ্রেফতার করে।

খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ তোফায়েল আহমেদের নেতৃত্বে এসআই সনজীব ঘোষ সঙ্গীয় ফোর্সসহ রূপসা থানা এলাকায় অবৈধ অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার সহ বিবিধ উদ্ধার অভিযান পরিচালনা কালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রূপসা থানাধীন বাগমারা গ্রামের পূর্ব রূপসা বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন বাস মালিক সমিতির অফিসের সামনে থেকে আসামি লাল্টু গাজীকে আটক করে। আটককৃত লাল্টু গাজী মহানগরীর খানজাহান আলী থানাধীন গিলাতলা এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে। সে পূর্ববাংলা কমিউনিষ্ট পার্টির লালটু বাহিনীর প্রধান। তার বিরুদ্ধে হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে ৭/৮ টি মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা থাকায় সে আত্মগোপনে থেকে খুলনা, বাগেরহাট, গোপালগঞ্জ তথা দক্ষিন বঙ্গের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান করে দলীয় কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে।

এছাড়া তার একটি নিজস্ব বাহিনী গড়ে তুলে ভাড়াটিয়া হিসেবে খুন, ডাকাতি ও সুন্দরবন এলাকায় বনদস্যু বাহিনীর সহায়তায় অপরাধমূলক কর্মকান্ত পরিচালনা করে আসছে। তার বিরুদ্ধে খুলনার ফুলতলা, খানজাহান আলী, খুলনা সদর থানা, আড়ংঘাটা থানায় এবং গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী থানায় হত্যা মামলা রয়েছে। সে ফুলতলা উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আকরাম হোসেনকে বোমা মেরে হত্যার প্রচেষ্টা চালায়। এ সংক্রান্তে তার বিরুদ্ধে খানজাহান আলী থানায় বিষ্ফোরক আইনে মামলা রয়েছে। উক্ত আসামি খুলনা মহানগরীর সিটিএসবি এর তালিকাভুক্ত অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির আঞ্চলিক নেতা। গোয়েন্দা তথ্যের ভিতিত্তে আরো জানা যায় যে, সে একজন ভাড়াটিয়া খুনি। সে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ভাড়াটিয়া হিসেবে খুন করে থাকে। সে তার কর্মকান্ড পরিচালনার সময় বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন নামে পরিচিত মর্মে জানা যায়। সে বিভিন্ন স্থানে অবস্থান কালে তার পরিচয় গোপন রাখার জন্য ছদ্মনাম ব্যবহার করে। যেমনঃ মামুন ওরফে আসাদ, ওরফে শফিক, ওরফে শফিকুল, ওরফে আসাদ, ওরফে জহির, ওরফে জহিরুল গাজী, ওরফে লালটু গাজী।

জেলা গোয়েন্দা শাখার এসআই সনজীব ঘোষ বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে রূপসা থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করেন। উক্ত আসামিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে তার অন্যান্য সহযোগীদের গ্রেফতারসহ তাদের দখলে থানা অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu