মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের অভিযোগে শিক্ষক কারাগারে

53

রংপুর ব্যুরো:

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় কওমি মাদ্রাসার সাত বছরের এক শিশু শিক্ষার্থীকে অমানুষিকভাবে পেটানোর অভিযোগে আবু সাইদ নামে এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) দুপুরে পুলিশ বাদী হয়ে ২০১৩ সালের শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দিয়ে আটক ওই শিক্ষককে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আটক শিক্ষক আবু সাইদ পাথরডুবি ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের হবিবর রহমানের ছেলে। অভিযুক্ত শিক্ষক আবু সাইদকে বুধবার (২১ এপ্রিল) রাতে উপজেলা সদরের পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের পেছনের সড়ক থেকে আটক করা হয়।

ভূরুঙ্গামারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভূরুঙ্গামারী উপজেলার পাথরডুবি ঢেবঢেবি বাজার কিসমত-কুলসুম ক্বওমি নূরানী ও হাফেজি মাদ্রাসার এক শিশু শিক্ষার্থীকে অমানসিক মারধরের অভিযোগ উঠে। গত তিনদিন আগে নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতারের চেষ্টা চালায়।

নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের অভিযোগ না থাকায় পুলিশ বাদী হয়ে শিশু নির্যাতন দমন আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।

উল্লেখ্য, নির্ধারিত বাড়ির কাজ না লিখে অন্য লেখা লিখে জমা দেওয়ার অপরাধে গত ১৯ এপ্রিল ওই শিক্ষক মাদ্রাসার এক শিক্ষার্থীকে বেদম মারধরের একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

ভিডিও দেখে ওই শিক্ষার্থীর বাবা পাথরডুবী বাজারের বাসিন্দা এবং ঢেবঢেবি বাজারের ব্যবসায়ী মোতালেব হোসেন জানতে পারে তার সন্তানকে এ ধরনের অমানসিক নির্যাতন সহ্য করতে হয় প্রতিনিয়ত। ওইদিন বিকালে (১৯ এপ্রিল) মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ মাদ্রাসায় একটি সালিশি বৈঠকের আয়োজন করে অভিযুক্ত শিক্ষককে বহিষ্কার করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here