মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৫:১৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বিশেষ নিবন্ধ : শ্রাবনের চরিত্রহনণ বঙ্গবন্ধু হয়ে ওঠার পেছনের অনুপ্রেরণা বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বাংলাদেশ-ভারত আমদানি-রফতানি চুক্তির প্রথম ট্রায়ালের পণ্য মোংলায় খালাস : মেঘালয় ও আসামের উদ্দেশ্যে যাত্রা নির্বাচন আসলেই এদেশের কিছু ধান্দাবাজ একত্রিত হয় : তালুকদার খালেক দেশে রিজার্ভ নেই-একদিন দেখবেন শেখ হাসিনাও মসনদে নেই : বিএনপি বঙ্গমাতার গুণাবলী ধারণ করে মেয়েদের এগিয়ে যেতে হবে : খুবি উপাচার্য বঙ্গবন্ধুর বাঙালির মুক্তির মহানায়ক হয়ে ওঠার পেছনে প্রেরণা ছিলেন  বঙ্গমাতা : সিটি মেয়র বঙ্গবন্ধু ছিলেন জাতির কান্ডারি ও রাজনীতির কবি : এসডিএফ চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ বাংলাদেশ-ভারত ট্রানজিট চুক্তি বাস্তবায়নে ভারতের ট্রায়াল জাহাজ মোংলা বন্দরে’ খুলনায় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকীতে দু:স্থ্যদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন

কেডিএ’র অনিয়মের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও সমাবেশ

সংবাদদাতার নাম :
  • প্রকাশিত সময় শনিবার, ১৩ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৭২২ পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক :

খুলনা মহানগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কেডিএ)-এর অনিয়মের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে সম্মিলিত নাগরিক সমাজ।

১৩ এপ্রিল শনিবার বেলা ১১টায় সম্মিলিত নাগরিক সমাজের আহবায়ক এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে মানববন্ধন কর্মসূচি  অনুষ্ঠিত হয় । মানববন্ধনে বক্তারা খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কেডিএ) নকশা অনুমোদনের ক্ষেত্রে নিত্য নতুন আইন প্রনয়ণ, নকশা অনুমোদনের জন্য দীর্ঘ অপেক্ষমান তালিকা, কেডিএ কর্তৃক বরাদ্দকৃত প্লট হস্তান্তরের ক্ষেত্রে আকাশ ছোঁয়া আর্থিক চাহিদা, আবাসিক হোক কিংবা বাণিজ্যিক হোক তার ট্রান্সফার ফি বৃদ্ধি, কেডিএ প্লটের বিধিমালা ফরমের মূল্য পূর্বের তুলনায় ২ থেকে ৩ গুন বৃদ্ধি, এনওসি/ প্লান পাশ ফি পূর্বের তুলনায় বৃদ্ধিসহ ১৫% ভ্যাট আরোপ, নিত্য নতুন সেবার নামে ফি চালুকরণ, নিউমার্কেটের দোকান মালিকদের চুক্তির মেয়াদ ২০২৫ সালে শেষ হওয়ার আগেই ২ থেকে ৩ গুন বেশী ভাড়া বৃদ্ধির নোটিশ প্রদান, অপরিকল্পিত রাস্তা কালভার্ট নির্মাণের কারণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টিকরণসহ নানা ধরণের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ধরেন। বক্তারা অবিলম্বে দুর্ণীতিবাজ প্লানিং অফিসারকে অপসারণ করে সকল অনিয়ম বন্ধ করে অবিলম্বে কেডিএকে সেবামূলক প্রতিষ্ঠানে রূপদানের জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।

এসময় বক্তব্য রাখেন খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে) এর সভাপতি মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম হাবিব, সাধারণ সম্পাদক মো. সাহেব আলী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুবির কুমার রায়, নাগরিক নেতা মিনা আজিজুর রহমান, খানজাহান আলী রোড দোকান মালিক সমিতির সভাপতি কামরুল করিম বাবু, শেখ শমসের আলী, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দীপক চন্দ্র মণ্ডল, জেলা ন্যাপের সাধারণ সম্পাদক তপন কুমার রায়, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আইয়ুব আলী শেখ, জেপি’র অধ্যক্ষ ডা. এম এন আলম সিদ্দিকী, খুলনা ছাপাখানা মালিক সমিতির সভাপতি এস এম জাকির হোসেন, ওর্য়াকার্স পার্টির মফিদুল ইসলাম, সিপিবি’র সভাপতি মো. শাহাদাৎ হোসেন, বৃহত্তর আমরা খুলনাবাসির সভাপতি ডা. নাসির উদ্দিন, মহাসচিব মাহাবুবুর রহমান খোকন, নাগরিক নেতা ডা. সৈয়দ মোসাদ্দেক হোসেন বাবলু, আইন সহায়তা কেন্দ্রের সভাপতি এম এ কাশেম, গোপালগঞ্জ সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান চৌধুরী, নাগরিক নেতা জামাল উদ্দিন বাচ্চু, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, এস এম শামছুদ্দিন আহমেদ শ্যাম, সমীর কৃষ্ণ হীরা, খানজাহান নগর জনকল্যান সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব কবির হোসেন মৃধা, নাগরিক নেতা আবুল কালাম আজাদ, রেল শ্রমিক নেতা মো. রায়তুল ইসলাম সহ বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক, ছাত্র জনতা বক্তব্য রাখেন। মানববন্ধন কর্মসূচি পরিচালনা করেন, সম্মিলিত নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব মো. মিজানুর রহমান বাবু ও খুলনা ভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলাম।

এসময়ে সোনাডাঙ্গা আবসিক (সেকেন্ড ফেজ) কল্যাণ সমিতি, দৌলতপুর ব্যবসায়ী সমিতি, ইটবালু কয়লা ব্যবসায়ী মালিক সমিতি, নৌপরিবহন কমিশন এজেন্ট কল্যাণ সমিতি, খালিশপুর হাউজিং ব্যবসায়ী সমিতি, পূর্ব বানিয়া খামার, জনকল্যাণ বহুমূখী সমবায় সমিতি, শেরে বাংলা মার্কেট মালিক সমিতি, খুলনা জেলা কাঠ ব্যবসায়ী মালিক সমিতি, আলো সুপার মার্কেট মালিক সমিতি, পৌর সুপার মার্কেট মালিক সমিতি, কেসিসি সুপার মার্কেট মালিক সমিতি, চশমা বণিক সমিতি, খানজাহান আলী রোড ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি, টিবি ক্রস রোড দোকান মালিক সমিতি, টিবি ক্রস রোড জনকল্যাণ সমিতি, খুলনা জেলা জুয়েলারী মালিক সমিতি, খুলনা বেকারী মালিক সমিতি, জেলা আম্পেয়ার সমিতি, খুলনা জেলা পাঠ্য পুস্তক ব্যবসায়ী সমিতি, খুলনা চিংড়ি বণিক সমিতি, খুলনা জেলা রাইস মিল মালিক সমিতি, কেসিতি ঠিকাদার কল্যাণ সমিতি, খালিশপুর হাউজিং ব্যবসায়ী মালিক সমিতি, খুলনা মহানগর ডেকোরেটর মালিক সমিতি, জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন, খুলনা মহানগর গৃহনির্মান শ্রমিক ইউনিয়ন সহ বিভিন্ন সরকারী, বেসরকারী, সামাজিক সংগঠন একাত্মতা ঘোষণা করে সংহতি প্রকাশ করেন।

মানববন্ধনে ১৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী বরাবরে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান এবং ৭ দিনের মধ্যে দাবি মানা না হলে ২৭ এপ্রিল শহীদ হাদিস পার্কে জনসমাবেশ কর্মসূচির মাধ্যমে দাবি আদায়ের কঠিন কর্মসূচি গ্রহণের ঘোষণা দেয়া হয়।

সংবাদটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করা হলো

এ ধরনের আরো সংবাদ

© All rights reserved by www.banglardinkal.com (Established in 2017)

Hwowlljksf788wf-Iu